নেটওয়ার্ক জ্যামার, বুস্টার ও রিপিটার ব্যবহার অবৈধ

নেটওয়ার্ক জ্যামার, বুস্টার ও রিপিটার ব্যবহার অবৈধ করেছে আমাদের দেশের সরকার। আমিও মেনে নিচ্ছি নেটওয়ার্ক জ্যামার ব্যবহার শত ভাগ অবৈধ। বিটি আরসি এর অনুমোদন বিহীন জ্যামার ব্যবহার করা দণ্ডনীয় । জ্যামার ব্যবহার করে ক্ষতি সাধন করা সম্ভব । সুতরাং জ্যামার ব্যবহারে আইনীয় বিষয় কঠোর ভাবে প্রয়োগ করা দরকার। কিন্তু বুস্টার ও রিপিটারে বিষয় শিথিল ভাবে দেখা প্রয়োজন।

নেটওয়ার্ক বুস্টার ও রিপিটার মূলত নেটওয়ার্ক সমস্যা সমাধানের জন্য ব্যবহার করা হয়। বাংলাদেশের নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা খুবই করুন। ৫জি সেবার চালু হওয়ার বাতাস বইলেও আজ পর্যন্ত ৪ জি এর সঠিক স্পিড পাওয়া যায় না শুধু তাই নয় আজকাল কথা বলতে গেলেও অনেক স্থানে নেটওয়ার্ক সমস্যার জন্য কথা বলা যায় । কথা বলা কিংবা ইন্টারনেট ব্যবহারে বুস্টার ব্যবহার করে থাকে । ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে এই রকম ব্যবহার আছে । হয়তো সেগুলো সরকার অনুমোদিত নয়। BTRC এর অনুমোদন করতে গেলে লম্বা সময়ের প্রয়োজন । এই রকম আইন সম্পর্কেও আমাদের ধারনা নাই । যেহেতু ক্রয় বিক্রিয় বে আইনী এই রকম নীতিমালা সম্পর্কে আমাদের সবার জ্ঞান রাখা ও BTRC এর সচেতুনতা মূলক বিজ্ঞাপন প্রচার করা উচিত বলে আমি মনে করি।

তবে এই বুস্টার ব্যবহারে আইন শিথিল করা গেলে গ্রাহকদের অনেক উপকার হবে। নেটওয়ার্ক বুস্টার বা রিপিটার ব্যবহারে এই রকম বিধি নিষেধ শিথিল করার অনুরোধ রইলো।

নেটওয়ার্ক উন্নয়ন ও আইনের বাস্তবায়নঃ

বাংলাদেশের মোবাইল ফোন অপারেটর যদি নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করে তাহলে এই রকম বুস্টার বা রিপিটারে প্রয়োজন পড়বে না। বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে যখন ৯৫% নেটওয়ার্ক কাভারেজের মধ্যে আসবে তখন আইনের সঠিক ব্যবহার করা গেলে অনেক উপকারে আসবে।

অনুমোদনে কমিটি গঠনঃ

জ্যামার, বুস্টার ও রিপিটার ব্যবহারে BTRC ও স্থানীয় প্রশাসন মিলে একটি কমিটি গঠন করা প্রয়োজন। যেখানে অনুমোদন দিবে বিটি আর সি ও সহযোগী হিসেবে কাজ করবে স্থানীয় প্রশাসন। প্রতিটি উপজেলায় একজন আইসিটি বিষয় কর্মকর্তা রয়েছেন। এতে করে আবেদন প্রক্রিয়া সহজতর হবে ।

উপরোক্ত বিষয় আমার একান্ত মতামত। এখানে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে ছোট করা জন্য লিখা হয়নি। আইনের প্রতি সবাইকে শ্রদ্ধাশীল হয়ে মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।