ফেইসবুক সেল বাড়ানোর উপায়

সেল আসবে ১০ গুন, এড়িয়ে চলুন ৫ টি ভুল❗
আমরা সবাই এখন কম বেশি করেও ৯৯% ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করছি❗
এর ভিতর ৭০% মানুষই জানেন নাহ কি কি ভুলের কারলে তার ব্যবসার সেল আসছে নাহ, চলুন জেনে নেই গোরায় গলদ আছে কিনা❗
বুস্ট করলেই সেল আসবে এমন চিন্তার অধিকারী হলে বাংলা সিনেমার মত নিজের মাথায় বাড়ি দিয়ে সব কিছু ভুলে যান, মার্কেটিং এর লাস্ট স্টেপ হচ্ছে বুস্টিং।
১ম ভুলঃ
ফেসবুক পেইজ খুলেই আমরা গুগল থেকে আমার বিজনেস এর সাথে মিলে এমন একটা লোগো এবং কাভার ফটো পছন্দ করে আমরা বসিয়ে দেই অনায়েসে, কারন মাথায় চিন্তা যত তারাতারি পোস্ট করে বুস্টিং দেওয়া যায় তত তারাতারি সেল হবে + লাভও হবে। জি নাহ কষ্ট না করলে কখনই কেষ্ট মিলবে নাহ❗
একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর কাছ থেকে লোগো এবং কাভার বানিয়ে এরপর পেইজে বসান, দেখুন তো আগের থেকে একটু ভাব আইছে নাহ।
২য় ভুলঃ
“ডাক্তার আসিবার পূর্বেই রোগীটি মারা গেলো” এই উক্তি/ কথাটির সাথে আমরা সকলেই পরিচিত, তেমনি প্রফেশনাল ভাবে পেইজ সেটয়াপ না করা থাকলে ফেসবুকই আপনার পেইজটিকে অথেনটিক পেইজ হিসেবে গ্রহন করবে নাহ, যেকোন টাইমে ব্যান করে দিতে পারে। পেইজ সেটয়াপ এ যেসকল ব্যাপার মাথায় রাখতে হবেঃ
১। পেইজ ইউজার নেইম
২। পেইজ ডেসক্রিপশন
৩। ইমেইল ভেরিফার করে নেওয়া
৪। মোবাইল নাম্বার দেওয়া
৫। বিজিনেস লোকেশন বসানো
৬। বিজনেস ডিটেইলস
৭। স্টোরি ব্যানার ও ডিটেইলস বসানো
৮। অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ার আইডি লিংক করানো
৯। ওয়েবসাইট এর লিংক বসাতে হবে(যদি থাকে), না থাকলে ওয়েবসাইট বানিয়ে ফেলুন, কারন এখন যেকোনো বিজিনেস এর ভার্চুয়াল রিপ্রেজেন্টিভ হিসেবে ওয়েবসাইট ব্যাপক ভুমিকা পালন করে।
১০। কোন কোন এরিয়াতে সার্ভিস দিতে পারবনে সেগুলো বসানো, এবং সর্বশেষে প্রাইভেসি পলেসি লিংক করানো, ওয়েবসাইট এর লিঙ্ক থাকলে তো ভালো নয়তো গুগল ডক্স ইউজ করুন।
৩য় ভুলঃ
আমরা অনেকেই প্রোডাক্ট পোস্ট করার সময় গুগল থেকে ছবি নিয়ে সরাসরি বসিয়ে দেই, এক্ষেত্রে অনেক সময় ছবির কোয়ালিটিও বাজে থাকে এবং আমাদের বুস্টিং রিজেক্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও থাকে ৯০%।
কারন ফেসবুক কপিরাইট ইমেজ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে বলেছে।
প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফি করুন, অথবা প্রোডাক্ট এর ব্যানার গুলো প্রফেশনাল ডিজাইনার এর থেকে বানিয়ে নিন।
৪র্থ ভুলঃ
বুস্টিং করার পর সঠিক ভাবে কাস্টমারদের সাথে ভালো ব্যবহার নাহ করা, লেইট রিপ্লাই দেওয়া, কাস্টমারদের নানান অজুহাত দেখানো এসকল কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকুন,
মনে রাখবেন কাস্টমার হচ্ছে লক্ষি। মনে রাখবেন ৮০% কাস্টমার আপনার থেকে ২য় বার প্রোডাক্ট কিনাতে আগ্রহী হবে যদি আপনি তাকে বেস্ট সার্ভিস দিয়ে থাকেন, তাই সব থেকে গুরুত্বপূর্ন বিষয় হচ্ছে কাস্টমার সার্ভিস।
৫ম ভুলঃ
পেইজে প্রোডাক্ট সেল এর পোস্ট অনাবরত করলেই হবে নাহ, এর পাশাপাশি আপনার কাস্টমারদের জন্য ব্লগ পোস্ট করা, সোশ্যাল এয়ারনেস পোস্ট রাখা, কাস্টমারদের রিভিও গুলা ব্যানার করে পোস্ট করা এগুলো আপনার পেইজের এনগেইজমেন্ট ঠিক রাখবে + কাস্টমারদের কাছে আপনার পেইজ অথেনটিকও মনে হবে।
সর্বশেষ আরেকটি জিনিস মনে রাখবেন অনেকেই আপনার পোস্টে হা হা রিয়েক্ট দিবে, হাসি মশকরা করবে, উল্টাপাল্টা দাম ও কষাকষি করবে এগুলো মাথায় নিয়ে বসে থাকলে হবে নাহ, ব্যবসা করতে আসছেন এতটুকু তো সহ্য করতেই হবে।
©SHAKIL AHAMMED

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *