আমার সম্পর্কে

আমি মোতাহারুল হাসান  সুমন । আমাকে অনেকেই অনেক নামেই ডাকে । তবে সুমন নামেই বেশি পরিচিতি বেশি । 

আমার মা মোসাঃ নূরজাহান নেসা। তিনি প্রাথমিক বিদ্যালয় এর সহকারী শিক্ষিকা ছিলে । ২০১৭ সালে সেচ্ছায় অবসর গ্রহন করেন। আমার বাবা মোঃ মনসুর রহমান। তিনি আমাদের মাঝে থেকে ২০১২ সালে ১৫ এপ্রিল মারা যান । তখন আমি ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এর ছাত্র ছিলাম ।  

আমার শিক্ষা জীবনঃ

আমার শিক্ষা জীবনের প্রাথমিক স্তর শুরু হয় আমার মায়ের স্কুল থেকে । আমি সইপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যেতাম মায়ের সাথে । তারপর মোহনপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০০৮ সালে এস এস সি পাশ করি । তারপর ভর্তি হই বাংলাদেশ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট । সেখানে ডিপ্লোমা ইন ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করি । ছাত্র হিসাবে সে রকম ভাল ছিলাম না । তাই আমার ডিপ্লোমা শেষ করতে একটু সময় লাগে । ২০১৫ সালে ফাইনালি আমি ডিপ্লোমা শেষ করি । ২০১৬ সালের দিকে আমি বি এস সি ইন কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এ ভর্তি হই । ২০১৭ সালে আমি সেখান  থেকে ড্রপ করি । আবার ভর্তি হই ২০১৯ সালে ডিসেম্বরে বি এস সি ইন ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স  ইঞ্জিনিয়ারিং এ ভর্তি হই । আবার ২০২০ সালে মার্চে ড্রপ করি । বি এস সি ভর্তি হই নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি । এক কথা আমার বি এস সি শেষ করা সম্ভব হয়নি । 

শিক্ষা জীবনে বি এস সি করবো আশা রাখি । আমি কম্পিউটার সাইন্স খুব ভালবাসি । মরার আগে আমি বি এস সি শেষ করে মরতে চাই । 

আমার কর্ম জীবনঃ

আমার জীবনের প্রথম চাকুরী করি ডিজিটেক ভ্যালী তে মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে । সেটা ২০১২ সালের নভেম্বর মাসের ১৭ তারিখের দিকে। ১৫ মে ২০১৩ সালে তা ছেড়ে দিয়ে বাসায় থাকি । রাজশাহী আই টি সেন্টার এর মাঝে ট্রেইনার হিসেবে কাজ করি । ০৭ সেপটেম্বর ২০১৪ থেকে ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত আই সি টি খন্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে কাজ করি মোহনপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এ শিক্ষকতা করি । 

২ ডিসেম্বর ২০১৮ থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০ পর্যন্ত শাপলা গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা – তে কাজ করি সহকারী ব্যবস্থাপক (আই টি) ।  

আমার দক্ষতাঃ