সাইরেন বাজালে বুকের মধ্যে ধক করে উঠে

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর গাড়ির সাইরেন বাজালে বুকের মধ্যে ধক করে উঠে। মনে হয় কত বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে। কয়েক মাস থেকে লক্ষ্য করেছি এক্সিডেন্ট কবলিত রোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার ক্ষেত্রে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর ভূমিকা রেখে আসছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বেশির ভাগ এক্সিডেন্ট এর রোগে পরিবহন করে। এদের ফোন নম্বরে ফোন দিলে আসেন উনারা ।

আমি যখন এই লিখা লিখছি তখন বাজে প্রায় রাত ১২ টা। ২৩ এপ্রিল ২০২২ ইং রাতের ঘটনা । আজ রাতেও সাইরেন শুনার পর বুঝলাম পারলাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর গাড়ি । রাজু মামার কাছে থেকে জানলাম এক্সিডেন্ট কেস। আল্লাহ্‌ আমাদের হেফাজত করুন।

রোড এক্সিডেন্টের জন্য আমরা নিজেরাই দায়ী। আমরা সচেতন হতে পারছিনা। দেখা যাচ্ছে আমার বাইক আছে আমি জোরে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছি । হেলমেট পরছি না । মোড়ের উপরে গাড়ির গতি কমানোর কথা মনেই থাকে না ।

রাস্তার দুঃঅবস্থার জন্যেও কিন্তু গাড়ির দূর্ঘটনা ঘটে আসছে । বি আর টি এ এর দূর্নীতি সব সময় আমাদের সামনে আসে । তারা যাকে তাকে গাড়ির ড্রাইভিং দিচ্ছে। ট্রাফিক সার্জেন্ট মামলা দিচ্ছে তবেও লাভ হয় না । আইন আরো কঠোর করতে হবে । গাড়ি যেখানে সেখানে দাঁড়ানো যাবে না । ট্রাফিক ব্যবস্থাকে আধুনিকায়ন করতে হবে । রাস্তার তৈরি করা হয় সাপের রাস্তার মতন এখান থেকে দূরে চলে আসতে হবে ।

Leave a Comment