পুরাতন সাইটে গুগল এডসেন্স

শুভেচ্ছা , সবাইকে আমার এই আর্টিকেলে স্বাগতম জানাই। আমার এই নতুন আর্টিকেলে লিখবো কিভাবে আমি আমার পুরাতন ওয়েব সাইটে এডসেন্স পেয়েছি।

সাম্প্রতি সময়ে আমি আমার ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্সের জন্য এপ্লাই করি। সেখান থেকে একটা ভাল সংবাদ পেয়েছি । আমার পুরাতন ওয়েব সাইটে গুগল এডসেন্স এপ্রুভ করেছে। এতে আমি খুব খুশি

ডোমেইনের বয়স ও কনটেন্টঃ

আমার ডোমেইন কিনেছি ২০১৯ সালে । যা অনেকদিন পড়েছিল। আমার এই ডোমেইন এ বাংলায় লিখা হয়েছে। ডোমেইনের অনেক কিছুই করেছি। হোষ্টিং বেশ কয়েকবার পরিবর্তন করা হয়েছে।

ওয়েবসাইটের নিশঃ

মূলত ভ্রমন ও সমসাময়িক বিষয় গুলো নিয়ে লিখা হয়েছে এই ওয়েব সাইটে। করোনার আপডেট বিভিন্ন বিষয় গুলো নিয়ে লিখেছি। নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করার জন্য লিখা শুরু করি।

কনটেন্টের পরিমানঃ

আমি মোটামোটি ৬৩ টি লিখা পোষ্ট করেছি। যার মধ্যে অনেকগুলোর লিখার সাইজ ছোট। পেজ আছে ১৮ টির মতন । কিন্তু সেই পেইজ গুলো খুব একটা বেশি লিখা নেই।

তবে সকল পোষ্ট আবার পুনরায় লিখতে হবে। যে লিখা গুলো লিখেছি সেগুলো তেমন কিওয়ার্ড অপ্টিমাইজড না। তাই এবার কিওয়ার্ড ধরে লিখা শুরু করতে হবে।

ওয়েবসাইট তৈরিতে খরচঃ

আমার বর্তমান অবস্থায় খরচ হয়েছে ডোমেইন এর জন্য ১২৫০ টাকা । ওয়েব হোষ্টিং এর জন্য খরচ প্রায় ৫০০০ টাকা। মোট বার্ষরিক খরচ ৬২৫০ টাকা । থিম জেনারেটপ্রেশ ফ্রি ভার্সন। প্লাগিং তেমন কিছুই ব্যবহার করিনাই । এস ই ও জন্য Yoast SEO, মনিটরিং ও গুগল ওয়েব মাস্টারের জন্য Site Kit By Google আরেকটা হলো Easy Table of Contents ব্যবহার করেছি।

সাদামাটা একটা ওয়েবসাইট তৈরি করেছি মাত্র।

বেসিক কয়েকটি পেজ তৈরি করা প্রয়োজন তার মধ্যে About Us, Contact Us, terms And Conditions ও Privacy Policy এই কয়েকটা ।

মূল কথা হলো সাইটের কনটেন্ট থাকলেই হবে । ভিজিটর কোন না কোন ভাবে আসবেই।

সাইটের ভিজিটরঃ

আমার ওয়েবসাইটে তেমন কোন ভিজিটর নেই। দুই একটা ভিজিটর আসে মাঝে মাঝে । গুগল এনালাইটিক অনুযায়ী শেষ ৯০ দিনের গ্রাফ দেওয়া হলো।

বিভিন্ন চ্যানেল থেকে ভিজিটর
দেশ ভিত্তিক জিভিটর
ডিভাইস থেকে ভিজিটর

এই গ্রাফে বুঝা গেলো ভিজিটর তেমন কিছুই বিষয় না। বিষয় হলো আপনার ভাল ভাবে লিখা কনটেন্ট ও ভালভাবে কিওয়ার্ড রিসার্স করে তা ভাল ভাবে বসানো।

Leave a Comment